Header Border

চাঁদপুর, শনিবার, ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)

নিহত ৪ জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

হাজীগঞ্জে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় আটক ১০ নিহত ৪ জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

কুমিল্লায় পবিত্র কোরআন অবমাননার ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাজীগঞ্জে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত ৪ জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ ১০ জনকে আটক করেছে।

হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় ৪ জন নিহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ। নিহতরা হলেন : হাজীগঞ্জ উপজেলার বড়কুল ইউনিয়নের রায়চোঁ গ্রামের আল আমিন (১৮), রান্ধুনীমুড়া এলাকার ফজলুল হকের ছেলে ইয়াছিন হোসেন (১৫), একই এলাকার আব্বাস উদ্দিনের ছেলে শামীম (১৯) ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বাবলু (৩০)। তাদের লাশ চাঁদপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সরকারি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল ১৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকেলে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

রান্ধুনীমুড়া এলাকার আব্বাস উদ্দিনের ছেলে রিপন বলেন, আমার ভাই শামীম ভ্যানে করে কলা বিক্রি করতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে আহত হওয়ার পর বুধবার রাত সাড়ে ১১ টায় কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে মারা যায়।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার) বলেন, আমরা কাউকে উদ্দেশ্য করে গুলি করিনি। মন্দিরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও পুলিশের ওপর হামলার চালানো হলে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৩৯ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়। এ ঘটনায় এএসপি সোহেল মাহমুদ, হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশিদসহ ২৩ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়। এরমধ্যে পুলিশের ৮ জন সদস্য হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, জাতীয় সংসদের হুইপ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং চাঁদপুর জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত ডিআইজি ইকবাল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ১৩ অক্টোবর বুধবার রাত সোয়া ৮টায় হাজীগঞ্জ পৌর এলাকায় ‘তৌহিদী জনতা’র ব্যানারে মিছিল বের করা হয়। ওই মিছিল থেকে ল²ীনারায়ণ আখড়ায় ঢিল ছোঁড়া হয়। এক পর্যায়ে মিছিলকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় পুলিশ তাদের জীবন রক্ষার্থে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ফাঁকা গুলি ছুড়ে। এতে ৪ জন নিহত ও পুলিশসহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

হামলার ঘটনার পর রাত ১১টা থেকে হাজীগঞ্জ বাজার এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। চাঁদপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছি। সেখানে (হাজীগঞ্জে) পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ২ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাব মোতায়েন করেছি।

হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহাবুব আলম লিপন বলেন, আমি ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করি। কিন্তু সেখানে গিয়ে আমি নিজেও আহত হই। এ ঘটনাটি পরিকল্পিত ছিল বলে আমি প্রশাসনকে আগেই জানিয়েছিলাম।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকারের ঘোষিত সম্প্রীতিকে বিনষ্ট করার জন্য সাম্প্রদায়িক একটি চক্র হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচে’ বড় ধর্মীয় উৎসবকে প্রশ্নবিদ্ধ ও বানচাল করার জন্য হীন উদ্দেশ্য নিয়ে হাজীগঞ্জ এলাকার কিশোর-যুবকদের নিয়ে ‘তৌহিদি জনতা’ নামক ব্যানার নিয়ে মন্দিরে হামলার উদ্দেশ্যে মিছিল সহকারে আসে। ওই সময় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা কিছু বুঝে উঠার আগেই ইট-পাটকেল ছুঁড়তে থাকে এবং মন্দিরে প্রবেশ করে। সে সময় শান্তি-শৃঙ্খলা’র যাতে বিঘœ না ঘটে, নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা তাদেরকে বাঁধা প্রদান করে। কিন্তু এক পর্যায়ে ‘তৌহিদি জনতা’ নামক মিছিলটি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ সদস্যরা ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে।

চাঁদপুর টেলিভিশন সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন


আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন
গণঅধিকার পরিষদের কচুয়া উপজেলা শাখার ইফতার ও দোয়া
ছাত্র অধিকার পরিষদের কচুয়া উপজেলা শাখা নতুন কমিটি ঘোষণা
বিএনপি-জামাত জনগণকে কিছু দিতে পারেনি বরং কেড়ে নিয়েছে – শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি
আজ চাঁদপুর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার উদ্বোধন
ফরিদগঞ্জে বন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ নিয়ে সরকারি গাছ কর্তনের অভিযোগ
চাঁদপুর পৌর শহীদ জাবেদ উচ্চ বিদ্যালয় ‘কলেজে’ উন্নীত!

জেলা সংবাদ এর আরও খবর

সম্পাদক : মোঃ মেহেদী হাসান